ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার নিশ্চিত ৫ টি উপায়

ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার অনেক গুলো মাধ্যম আমাদের হাতে রয়েছে। আমি নিজে যে টাকা খরচ করি সেগুলো সব আসে ইন্টারনেট থেকে। আপনার জন্য ও online taka income করা রাস্তা রয়েছে। আপনার শুধু প্রয়োজন কৌশল ও দক্ষতার। আপনার মধ্যে যদি এগুলো থাকে তাহালে আপনি skill কাজে লাগিয়ে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। (How to earn money form Internet in bangla tutorial)

আমাদের দেশের বেশি ভাগ স্কুল কলেজের ছাএ ছাএীরা 'ইন্টারনেট থেকে অনলাইনে টাকা আয় করার উপায়" খুঁজতেছে। এছাড়া কিছু কিছু মহিলারা সারাদিন ঘরে বসে না থেকে online income করার উপায় খুঁজতেছে। মনে রাখবেন অনলাইন ইনকাম যেমন ভাল জনক তেমন এর মধ্যে অনেক মিথ্যাচার ও জালিয়াতি রয়েছে। এজন্য যেটা করবেন সেটা ভালো করে জেনে এগিবেন। (Online taka income করার উপায়



আজকে আমি আপনাদের ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করা যায় এমন ৫ উপায় বলব। এই ৫ টি থেকে যে কোনো একটি কাজ করলে আপনারা মাসে ভালো পরিমানে টাকা আয় করতে পারবেন। "অনলাইন টাকা ইনকাম" এর মাধ্যম গুলো যে কেউ ব্যবহার করে কাজ করতে পারবে। বর্তমানে "ইন্টারনেট থেকে টাকা আয়" করার অনেক গুলো সুযোগ তৈরি হয়ে গেছে।


online income বা online earning করার জন্য কি কি লাগবে?


আসলে online income বা online earning করার জন্য কি কি লাগবে এটা নির্ভর করে সম্পূর্ণ আপনার কাজের উপার। তবে, সাধারন ভাবে কিছু জিনিসের প্রয়োজন হয় সেগুলো হলো - 

  • ল্যাপটপ / কম্পিউটার

  • ইন্টারনেট কানেকশন

  • স্মার্ট মোবাইলফোন

আগের বলে রাখি সব কাজ কিন্ত স্মার্ট মোবাইলফোন দিয়ে করা সম্ভব নয়। তবে, কিছু কিছু কাজ মোবাইলে করা যাবে। আমি আজকে যে ৫ "অনলাইন আয়' করার বিষয়ে বলবো সেগুলো আপনারা মোবাইলের দ্বারা করতে পারবেন।


ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার নিশ্চিত ৫ টি উপায় (online taka income)


(১) পিসিটি (PCT) ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করুন


আপনারা পিসিটি (PCT) ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ঘরে বসে বিজ্ঞাপন দেখে বা বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে টাকা আয় করতে পারবেন। অনেকে হয়তে বুঝতে পারছে না PCT মানে কি? আসলে PCT মানে Pay to click. পিসিটি ওয়েবসাইট আপনাদেরকে অনেক রকমের কাজ দিতে পারে। যেমন- 

  • Paid survey এর কাজ

  • বিজ্ঞাপন (ads) দেখার কাজ

  • বিভিন্ন অফারের কাজ

তবে, পিসিটি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার সব চেয়ে সহজ কাজ হলো "বিজ্ঞাপন দেখা" এবং "পেইড সার্ভে" পূরণ করার কাজ। আমি জনপ্রিয় দুইটি পিসিটি ওয়েবসাইটের নাম উল্লেখ করছি। যার মাধ্যমে অনেকে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করেছে।যথা-

  • NEOBUX.COM

  • YSENSE.COM

(২) Earn money online Facebook videos - (ফেসবুক থেকে টাকা আয় করুন)


আপনি "ফেসবুক থেকে টাকা আয়" করতে পারবেন। কি শুনে একটু অবাক হলেন? হা আমি ঠিকই বলেছি আপনি ফেসবুক পেইজ এ ভিডিও আপলোড করে টাকা আয় করতে পারবেন। Facebook বর্তমানে নতুন একটি function বের করেছে যার নাম হলো "ad breaks".


Ad Breaks এর মাধ্যমে আপনি নিজের ফেসবুক পেইজ এ ভিডিও তে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন। ইউটিউব চ্যানেলের থেকে বেশি পরিমানে টাকা আয় করতে পারবেন ফেসবুক থেকে। কারণ এখানে ভিডিও দ্রুত ভাইরাল হয় এবং প্রচুর প্রচুর মানুষরা ফেসবুক ব্যবহার করে। "ফেসবুক পেইজ থেকে টাকা আয়" করতে হলে আপনাকে তাদের কিছু নিয়ম মেনে কাজ করতে হবে। যেমন-


আপনার একটি ফেসবুক পেইজ থাকতে হবে। মনে রাখবেন ফেসবুক আইডি থেকে কিন্ত এটা সম্ভব না। অবশ্যয় আপনাকে একটি ফেসবুক পেইজ খুলতে হবে।


আপনার ফেসবুক পেইজ এ ১০,০০০ লাইক (Like) বা ফলোয়ার (Follows) থাকতে হবে।


নিজের তৈরি করা ভিডিও পেইজ এ আপলোড করতে হবে। কোথাও থেকে কপি করা ভিডিও আপলোড করে টাকা আয় করতে পারবেন না।


পেজের সমস্ত ভিডিও ৩ মিনিটের বেশি হতে হবে। যদি ৩ মিনিটের কম সময় হয় তাহালে সেই ভিডিও তে বিজ্ঞাপন (ads) দেখাবে না।


আপনার পেজের সমস্ত ভিডিও এর ওয়ার্চ টাইম একেএে  ৩০,০০০ মিনিট হতে হবে।


উপরের সব গুলো যদি আপনার Facebook page এ থাকে তাহালে তাহালে আপনি টাকা আয় করতে পারবেন। আর যদি না থাকে তাহালে নিয়ম গুলো পূর্ন করে "ফেসবুক পেইজ থেকে টাকা আয়" করা শুরু করে দিন। বাংলাদেশ থেকে ফেসবুক পেইজ মনিটাইজ অন করে দিয়েছে। আপনারা ফেসবুকে টাকা আয় করতে পারবেন।


(৩) ব্লগিং করে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করুন


ব্লগিং করে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করা অন্যতম সেরা উপায়। আমি নিজে একজন ব্লগার। আমি ৩ বছর ধরে ব্লগিং করছি। আমি ব্লগিং করে মাসে ২০,০০০ টাকার বেশি আয় করি। আপনারা Blogging করে আয় করতে পারেন। তার জন্য একটি "ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি" করতে হবে। সেখানে আপনি যে বিষয়ে ভালো জানেন সেই বিষয়ে লিখতে থাকবেন।


যখন আপনার ব্লগ ওয়েবসাইটে ভিজিটর্সরা আসতে তখন Google AdSense বা অন্য কোম্পানির বিজ্ঞাপন দেখিয়ে প্রতি মাসে ভালো পরিমানে আয় করতে পারবেন। আপনি যদি প্রথমে একটু কষ্ট করে কাজ করতে পারেন তাহালে ৩ থেকে ৪ মাস পর থেকে প্রতিমাসে ২০,০০০ টাকা থেকে ২২,০০০ টাকা আয় করতে পারবেন। আর যত সময় যাবে ততো আপনার ইনকামের পরিমান বৃদ্ধি পাবে।


(৪) আপনার যদি ভিডিও তৈরি করার কৌশল থাকে তাহালে আপনি "YouTube থেকে টাকা আয়" করতে পারবেন। এটার জন্য আপনাকে একটি "ইউটিউব চ্যানেল" তৈরি করতে হবে। ব্লগিং এর পরে অনলাইন ইনকাম এর দ্বিতীয় মাধ্যম হলো ইউটিউব। আপনি একটি YouTube Channel তৈরি করে যেকোনো ভিডিও আপলোড করে টাকা আয় করতে পারবেন।


তবে, ইউটিউব থেকে আয় করতে হলে আপনাকে তাদের কিছু নিয়ম মানতে হবে। এক বছরের মধ্যে ১০০০ সাবস্ক্রাইবার এবং ৪০০০ ঘন্টা ওয়ার্চ টাইম বানাতে হবে। এটা যদি আপনার চ্যানেলে থাকে তাহালে আপনি গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন। তবে, মনে রাখবেন চ্যানেলে কোনো প্রকার কপিরাইট ভিডিও, ছবি (image) ব্যবহার করা যাবে না।


(৫) Affiliate marketing করে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করুন


affiliate marketing এমন একটি মার্কেটিং হয়ে দাড়িয়েছে যেখানে আপনারা অন্যের কোম্পানির পণ্য অনলাইনে প্রমোশন বা প্রচার করে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। এই পণ্য গুলো আপনারা ব্লগ ওয়েবসাইট, ইউটিউব চ্যানেল বা সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করে মার্কেটিং করতে পারবেন। আপনি যে পণ্য শেয়ার করলেন সেই affiliate লিংক থেকে যদি কেউ পণ্য কিনে তাহালে আপনি কোম্পানি থেকে কমিশন (commission) পাবেন।


আপনারা বড় বড় কোম্পানির পণ্য গুলো নিয়ে affiliate marketing করতে পারবেন। যেমন- Amazon, Flipkart, Alibaba এদের পণ্য গুলো affiliate link শোয়ার করে করে "ইন্টারনেট থেকে টাকা আয়" করতে পারবেন। এই ওয়েবসাইট গুলোকে বলা হয় e-commerce website.


এই আর্টিকেল থেকে আমরা শিখতে পারলাম "ইন্টারনেট থেকে টাকা আয়" করার ৫ টি উপায়। আপনারা নিত্য নতুন online income সম্পর্কে জানতে নিয়মিত এই ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। কোনো বিষয়ে প্রশ্ন থাকলে নিচে কমেন্ট করুন এবং ভালো লাগলে শোয়ার করুন।

Post a Comment

2 Comments

  1. অনেক তথ্যবহুল লেখা। অনেক ধন্যবাদ সুন্দর লেখার জন্য। আমি নিজেও এই ধরণে বিষয় নিয়ে লেখালেখি করছি । তবে এখানে পোস্টটি পড়ে বুঝতে পেরেছি যে পোস্টতে অনেক কিছু শিক্ষানীয় বিষয় রয়েছে। আমি আশা করি আরও ভাল ভাল পোস্ট এখানে পাবো।
    Visit অনলাইনে ইনকাম করার সহজ উপায়!

    ReplyDelete