কিভাবে ফ্রিল্যান্সার হবেন? - ABC Media BD

Breaking

Saturday, March 7, 2020

কিভাবে ফ্রিল্যান্সার হবেন?

যদি ফ্রিল্যান্সার হতে চানঃ ১৯৯৮ সালের  অনলাইনের মার্কেট খোলা হয়েছিল সেখান থেকেই বলতে গেলে পৃথিবীতে ফ্রিল্যান্সিং এর যাত্রা শুরু হয়েছে। বলতে গেলে ব্যাপারটা কিন্তু বেশ মজাদার। ধরা বাধা কোনো অফিস টাইম নেই, যখন ইচ্ছে কাজ করলে হলো। আপনার যখন ইচ্ছা সস্বাধীন ভাবে কাজ করতে পারবেন। আপনাকে নিদিষ্ট অফিসের মতো সময় ধরে সকাল ১০ টা থেকে ৫ টা পর্যন্ত কাজ করতে হবে না। 

কিভাবে ফ্রিল্যান্সার হবেন

আপনি সম্পর্ন ফ্রি সময়ে কাজ করতে পারবেন বলে এই কাজ বেশি মানুষরা পছন্দ করে।  আসলে ফ্রিল্যান্সিং কথার মূল অর্থ হলো ফ্রি সময়ে যে কাজ করা যায়। আর ফ্রিল্যান্সার বলা হয়ে তাকে যে ব্যাক্তি সম্পর্ন ফ্রি সময়ে অনলাইনে কাজ করে অর্থ বা টাকা আয় করে তাকে ফ্রিল্যান্সার বলে। আমি আশা করি আপনারা ফ্রিল্যান্সার কাকে বলে পরিস্কার ভাবে বুঝতে পারবেন। এই কাজ হতে পারে বিভিন্ন রকম।
 যে বিষয় নিয়ে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে চান সেই বিষয়ে ছোটখাটো একজন বিশেষজ্ঞ হয়ে যেতে হবে আপনাকে। আমি যদি কয়েকটি বিষয়ে দক্ষ হন তাহলে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে মার্কেটে আপনি অনেক কাজ পাবেন। একজন ভালো ফ্রিল্যান্সার হতে হলে অনেক ভালো একটি প্রফাইল বানানো কিন্ত খুবই  গুরুত্বপূর্ণ। এজন্য কিছু কিছু বিষয় অবশ্যই আমাদের মাথায় রাখতে হবে। 
যে কোন একটা বিষয়ে এক্সপার্ট হতে হবে এবং যে বিষয়ে এক্সপার্ট হয়েছে আমরা সে বিষয়টি নিয়ে দুই একটা কাজ করে রাখতে হবে। ক্লাইন্ট পাবার সবচেয়ে সহজ উপয় হলো কারো রেফারেন্স এ কাজ পাবা। চমৎকার একটি প্রফাইল তৈরি করে ধৈর্য ধরে কাজ করতে হবে আপনাকে প্রথম কাজ পাবার জন্য। ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটে নানা ধরনের কাজ পাবা সম্ভব। এই কাজ গুলো সাধারণত ২ ভাগে ভাগ করা যায়। তুলনামূলক সহজ কাজ গুলোর মধ্যে "ডাটা এন্টি" বা "আর্টিকেল লেখা" এর মতো কাজ। 

আর তুলানামূলক কঠিন কাজ গুলোর মধ্যে রয়েছে সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট, সফটওয়্যার ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, গ্রাফিক্স ডিজাইন।  ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করার পাশাপাশি পারিশ্রমিক পাবার ধারনাটা ও আপনার পরিস্কার ভাবে জানতে হবে। ফ্রিল্যান্সিং বর্তমানে অনেক সম্ভবনার দার খুলে দিয়েছে। 

তেমনি অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে আপনাকে বেশ কিছু সমস্যার মোকাবেলা করতে হবে। ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার জন্য কোনো নিদিষ্ট সময় নেয়। যে কোনো সময় কাজ আসতে পারে। তার জন্য আপনাকে সব সময় এক্টিভ থাকবে হবে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটেপ্লেসে। 
আবার অনেক সময় সারা দিন এক্টিভ থেকে ও কাজ পাবেন না এমন ও হতে পারে। তার জন্য এমন ও হতে পারে যে কোনো মাসে বিশাল অংকের টাকা আপনি আয় করলেন। আবার দেখা গেলে কোনো মাসে টাকা আয়ের পরিমানটা একে বারে কমে গেল।

 ফ্রিল্যান্সিং এর দিকে মানুষরা এতো অগ্রাহ্য দেখাচ্ছে এই কারণে যে ফ্রিল্যান্সার মার্কেটেপ্লেসে ১ ঘন্টা কাজ করলে আপনি সর্ব নিন্ম ৫ ডলার মানে বাংলাদেশ টাকায় ৪২০ টাকা পাবেন। যেখানে আপনি অফিসে সারা দিন কাজ করে পাচ্ছেন ৭০০ টাকা থেকে ৯০০ টাকা। আর এই ফ্রিল্যান্সিং কাজ আপনি করতে পারবেন সম্পর্ন নিজের ইচ্ছা মতো। 

অনেক সময় আবার ক্লাইন্ট পারিশ্রমিক বা টাকা দিতে দেরি করে নানা ধরনের সমস্য করে থাকে। আবার ফ্রিল্যান্সিং বা অউটসোসিং বিষয়টা আমাদের দেশে সকৃতিত্ব না এখনো পেষা হিসাবে। তার পরে ও বর্তমানে বাংলাদেশে দিনে দিনে শিক্ষিত বেকার যুব সমাজ অগ্রাহ্য হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং এর দিকে। 

বর্তমানে বাংলাদেশে ৬ লক্ষ এর বেশি ফ্রিল্যান্সার রয়েছে। এবং ধীরে ধীরে এর পরিমান বেড়ে চলেছে। প্রতি বছর বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সাররা বিদেশ থেকে অনলাইনের মাধ্যমে ইনকাম করে নিয়ে আসছে ৫০ মিলিয়ান মারর্কিন ডলার। 

আপনি বাজারে বা ইউটিউবে ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোসিং করার জন্য অনেক ধরনের ভিডিও পাবেন। যে সব ভিডিও দেখে আপনারা ঘরে বসে ফ্রিল্যান্সার হতে পারবেন। আবার যদি আপনি মনে করেন আমি ফ্রিল্যান্সিং হাতে কলমে শিখতে চাই তাহালে বিভিন্ন জায়গায় নানা বিষয়ের উপর কোর্স করাছে বিভিন্ন কোম্পানি। আপনারা চাইলে সেখান থেকে হাতে কলমে শিখতে পারেন।
আবার অনেক আছে তারা বিভিন্ন কাজ গুলো ঘরে বসে লাইভ ভিডিও ক্লাস করে শিখতে পারবেন। এই রকমের লাইভ ক্লাস হতে পারে সপ্তাহে ৩ দিন। এবং ক্লাস শেষে সমস্ত ভিডিও গুলো আপনাকে দিয়ে দেবা হয়ে থাকে। এই কোর্স গুলো করার জন্য আপনাদের প্রতি মাসে নিদিষ্ট একটি ফ্রি দিতে হবে। এই ফ্রি হতে পারে ৩ হাজার টাকা থেকে ৫ হাজার টাকার মধ্যে।
একটি কথা জেনে আপনারা সকলে আনন্দ পাবেন যে বাংলাদেশ ফ্রিল্যান্সার এর দিক থেকে সারা বিশ্বে দ্বিতীয় স্থানে অবস্থান করছে। আমি নিচে বর্তমানে সারা বিশ্বের ফ্রিল্যান্সিং রেংকিক এ থাকা ৩ দেশের নাম উল্লেখ করছি। 

(১) ভারত (India)
(২) বাংলাদেশ (Bangladesh)
(৩) আমেরিকা (U S A)

আমাদের ভাবতে বেশ ভালো লাগে যে বাংলাদেশ ছোট একটি দেশ হলো ও সারা বিশ্বে ফ্রিল্যান্সিং এ দ্বিতীয় নংবারে অবস্থান করছে। বাংলাদেশে রয়েছে ৬.৫ লক্ষ ফ্রিল্যান্সার। আর দিনে দিনে এর পরিমান খুব দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। 


আমাদের সর্বশেষ কথা


তাহালে বন্ধুরা আপনি যদি এক জন ফ্রিল্যান্সার হতে চান তাহালে এই সব কিছু বিবেচনা করে কিন্ত এই ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ে পা বাড়াতে হবে আপনাকে। 

3 comments:

  1. Skip forward to today, has seen a 200Percent rise in organic sociable signals, 300Per cent increase in syndicated content material content, browse around here and the first time at any time outpaced its largest contender both in rating key phrases and organic and natural click-through.

    ReplyDelete