ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার ৫ টি নিশ্চিত উপয় (online taka income) - ABC Media BD

Breaking

Wednesday, December 18, 2019

ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার ৫ টি নিশ্চিত উপয় (online taka income)

বর্তমান সময়ে আমাদের হাতে 'ইন্টারনেট থেকে টাকা আয়' করার জন্য অনক উপয় রয়েছে। আমি নিজেও প্রতিমাসে অনেক বেশি পরিমানে "internet থেকে টাকা আয়" করছি। আপনি যদি চেষ্টা করেন তাহালে আপনি নিজেও Online income করতে পারবেন। এতে আপনার দরকার হবে সময় এবং দক্ষতার। (How To Earn Money Form Internet In Bangla)
ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার ৫ টি নিশ্চিত উপয় (online taka income)
ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার ৫ টি নিশ্চিত উপয় (online taka income)

বর্তমান সময়ে দেখা যাচ্ছে বেশি ভাগ students রা Internet থেকে online earning করার বিভিন্ন মাধম চেষ্টা করছে। এছাড়া কিছু কিছু মহিলারা ঘরে বসে "অনলাইন ইনকাম" করার জন্য নানা উপয় চেষ্টা করছে।

আপনাদের অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে, অনলাইন ইনকাম যেমন লাভজনক উপয় রয়েছে, তেমন মিথ্যা অথবা জালিয়াতি (fake) মাধমও কিন্ত রয়েছে। আপনি যদি মিথ্যা অথবা জালিয়াতির মধ্যে পড়ে যান তাহালে আপনার সময় নষ্ট ছাড়া আর কিছুই হবে না। এখানে আপনার কাছ থেকে ঠিক মতো কাজ করে নিবে কিন্ত টাকা দিবে না।

আমাদের বুঝতে হবে ইন্টারনেটে টাকা আয় করার সব মাধ্যম গুলো আসল নয়। তবে, ইন্টারনেটে যে সব অনলাইন থেকে টাকা আয় করার সঠিক উপয় গুলো রয়েছে সেগুলো যদি আপনি ঠিক ভাবে জানতে পারেন তাহালে আপনি খুব সহজে লাভো বান হতে পারবেন। আর আপনি কিছু দিনের মধ্যে টাকা আয় করতে পারবেন। এতে আপনার অনন্য কোনো কাজ করার দরকার হবে না।

ইনস্টাগ্রাম থেকে টাকা আয় কিভাবে করবেন (Earn Money Online)

আজ আমি আমার এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনাদের এমন 5 টি উপয় বিরস্তিত ভাবে বলবো। যেগুলো সঠিক ভাবে ব্যবহার করতে পারলে অবশ্যই কিছু দিনের মধ্যে ভালো পরিমানে টাকা আয় করতে পারবেন বলে আমি মনে করি।

আপনারা চাইলে যে কেউ অথবা যে কোনো বয়সের মানুষরা এই উপয় গুলো ব্যবহার করে অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। যেমন- স্কুল, কলেজের ছাএ-ছাএীরা (Students), Housewives যে কেউ করতে পারবেন। আবার আপনি যদি মনে করেন part-time অথবা full-time online income করার জন্য এই কাজ করতে পারবেন।

আপনার আসে-পাশে একটু নজর দিলে দেখতে পারবেন অনলাইন ইনকাম করে চাকরির থেকেও অনেক অনেক বেশি টাকা আয় করছে। আর যতো দিন যাচ্ছে ততো বেশি online income করার সুযোগ বৃদ্ধি পাচ্ছে। আপনি ও চাইলে "Internet থেকে টাকা আয়" করতে পারবেন। (online taka income করার উপয়)

আজ আমি এই আর্টিকেলে এমন ৫ টি উপয় বলবো যার মাধ্যমে আপনারা ঘরে বসে প্রচুর পরিমানে টাকা আয় করতে পারবেন। এই সব উপয় গুলোর মাধ্যমে অনেক মানুষরা প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছে।

কেন ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করবেন?


বর্তমান বিশ্বে দিন দিন জনসংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর সাথে সাথে বৃদ্ধি পাচ্ছে চাকরির প্রতিযোগিতাও। সেই জন্য ভালো মানের চাকরি পাওয়া অনেক অনেক কঠিন হয়ে গেছে। তার চেয়ে বিকার ঘরে বসে থাকার চেয়ে ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করাটা অনেক ভালো বলে আমি মনে করি।

মোবাইল দিয়ে ভিডিও এডিটিং করার সেরা ৮ টি এন্ড্রয়েড অ্যাপ - (২০২০)

আজ আমার মতো আপনারা যদি ঘরে বসে online income করতে পারেন তাহালে অনন্য কাজ এবং চাকরির বাহিরে ও একটা বাড়তি (extra income) ইনকাম করতে পারবেন।

ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার জন্য মানুষরা বিভিন্ন উপয় ব্যবহার করে। এখানে নিদিষ্ট করে বলা যাবে না যে আপনি কতো টাকা মাসে আয় করতে পারবেন। তবে আপনি যখন ভালো কাজ শিখে যাবেন তখন আপনি প্রতিমাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন ঘরে বসে।

আর আপনি যদিও প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় না করতে পারেন তাহালে প্রতি মাসে ভালো পরিমান টাকা আয় করতে পারবেন। এতে করে আপনার অন্য কোনো কিছু করার দরকার হবে না।

আজকাল আন্টারনেটে এমন অনেক ভালো ভালো মাধ্যম রয়েছে যার মাধ্যমে দেশ বিদেশের বিভন্ন মানুষরা প্রতি মাসে ভালো পরিমানে "ইন্টারনেট থেকে টাকা আয়" করতে পারবেন। এই সব কাজ গুলো হচ্ছে- "Blogging"  "YouTube channel"  "affiliate marketing" ইত্যাদি।

আপনার যে কেউ "Blogging" "YouTube channel" এবং "affiliate marketing" করে Internet থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। বর্তমানে এই ৩ টি উপয়ে সব চেয়ে বেশি সংখ্যাক "অনলাইনে আয় করার নিশ্চিত উপায়" বলে ধরা হচ্চে।

আপনি যদি google search দিয়ে দেখেন তাহালে দেখবেন বর্তমানে দিনের পর দিন online earning এবং online income এর সুযোগ অনেক বেড়ে গেছে। আর এই বিষয় গুলো বর্তমানে অনেক অনেক সফল হয়ে দাড়িয়েছে।

এই সুযোগ আপনি কেন হাত ছাড়া করবেন? বিভিন্ন জায়গায় জায়গায় চাকরি না খুজে, অফিসের মালিকের গালাগালি না শুনার চেয়ে ঘরে বসে online earning এবং online income করুন আমার মতো। আমি যেমন ভাবে "অনলাইন থেকে টাকা আয়" করছি।

কোন বিষয় নিয়ে ব্লগ তৈরি করবেন? (লাভজনক নিশ আইডিয়া)

এখানে আপনি স্বাধীন ভাবে কাজ করতে পারবেন। আপনি নিজে মালিক হয়ে ব্যবসার মতে করতে পারবেন। আপনার ইচ্ছা স্বাধীন মতো চলাফোরা করতে পারবেন।

Online income অথবা Online earning করার জন্য কি কি লাগবে / প্রয়োজন?


আসলে online income এবং online earning করার জন্য কি কি লাগবে সেটা পুরোপুরি ভাবে নির্ভর করে আপনি কি কাজ করবেন সেটার উপর। তবে, আপনার একটি কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ এবং ইন্টারনেট কানেকশন (Internet connection) থাকা খুব দরকার বা প্রয়োজন।

আপনি যে কোনো জায়গা থেকে ইন্টারনেটের মাধ্যমে কাজ করতে পারবেন। তার জন্য আপনাকে একটি ল্যাপটপ হলে ভালো হয়। কারণ ল্যাপটপ যে কোনো জায়গায় নিয়ে যাওয়া যায়।

আর যদি আপনার একটি কম্পিউটার থাকে তাহালে আপনাকে একটি নিদিষ্ট স্থানে বসে কাজ করতে হবে। কারণ কম্পিউটার যে কোনো স্থানে নিয়ে যাওয়া যায় না। এজন্য একটি ল্যাপটপ (Laptop) থাকা দরকার এবং সেটা লাভ জনক।

আবার আপনি যদি মনে করেন যে আমি মোবাইল ফোন ব্যবহারের মাধ্যমে কাজ করবো তাহালে আমি নিচ্শিত ভাবে বলবো যে "এভাবে কোনো অনলাইন কাজ করা সম্ভব না"। আপনাকে প্রতিমাসে ভালো পরিমানে "অনলাইন থেকে টাকা আয়" করার জন্য প্রফেশনাল (professional) ভাবে কাজ করতে হবে। আর তার জন্য ল্যাপটপ অথবা কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট কানেকশন থাকা দরকার।

ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার ৫ টি নিচ্শিত  উপয় - (online taka income)


আজ আমি এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনাদের যে ৫ টি উপয় বলবো সেগুলো সম্পর্কে YouTube search এবং google search থেকে ও আপনারা জেনে নিতে পারবেন। তার পরে আপনারা এই গুলো ব্যবহার করে online income করতে পারবেন। নিচে দেওয়া উপয় গুলো ২০২০ সালে অনলাইন ইনকামের সব থেকে সেরা উপয় হিসাবে  প্রমাণিত হয়েছে।

(১) পিসিটি (PCT) ওয়েবসাইটের মাধ্যমে


পিসিটি (PCT) মানে pay to click ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে আপনি ঘরে বসে বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে অথবা বিজ্ঞাপন দেখে online income করতে পারবেন। পিসিটি (PCT) ওয়েবসাইট মূলত আমাদের নানা ধরনের কাজ দেয়। তার মধ্য উল্লোখ যোগ্য কাজগুলো হচ্ছে - বিজ্ঞাপন (advertisement) দেখার কাজ, paid survey কাজ, বিভিন্ন কাজের অফার (offer) কাজ

এই পিসিটি (PCT) ওয়েবসাইট গুলো আমাদের অনলাইন কাজের সুযোগ দেয়। আসলে এই ওয়েবসাইট থেকে টাকা আয় করার সহজ উপয় হলো "বিজ্ঞাপন দেখে" এবং "পেইড সার্ভে" পুরা করা।

মনে রাখবেন সব পিসিটি (PCT) ওয়েবসাইট গুলো নিরাপদ নয়। তাদের উপর ভরসা ও করা যায় না। তবে, ভরসা করা যায় "YSENSE.COM" এবং "NEOBUX.COM" এই দুইটা ওয়েবসাইট থেকে হাজার হাজার মানুষরা টাকা আয় করছে।

মোবাইল দিয়ে টাকা আয়

এছাড়া ইন্টারনেটে আরো অনেক পিসিটি (PCT) ওয়েবসাইট রয়েছে। আপনি যে ওয়েবসাইটে কাজ করবেন সেই ওয়েবসাইট সম্পর্কে আগে ভালো ভাবে জেনে তার পর কাজ শুরু করবেন। তাহালে "অনলাইন থেকে টাকা আয়" করতে পারবেন।

(২) Earn money online through facebook videos


এখন ইউটিউবের মতো ফেসবুক থেকে টাকা আয় করা যায়। ফেসবুকে বর্তমানে নতুন একটি function বের করেছে। আর এই নতুন function এর নাম হচ্ছে "Ad breaks" এই "Ad breaks" কাজে লাগিয়ে আপনি "ফেসবুক থেকে unlimited টাকা আয়" করতে পারবেন।

আপনার নিজের ফেসবুক পেজে আপলোড করা ভিডিও গুলোতে বিজ্ঞাপন (advertisements) দেখিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন। কিছু দিন আগে ফেসবুকের এই নতুন function বের হয়েছে, যার কারণে সঠিক ভাবে বলা যাবে না আপনি প্রতি মাসে কেমন টাকা আয় করতে পারবেন।

YouTube এর মতো ভিডিও আপলোড করে টাকা আয় করাটা অনেক বেশি চর্চাতে রয়েছে বলে মনে করা হয়। কিন্ত "facebook add breaks" এর মাধ্যমে টাকা আয় করতে হলে আপনাকে অনেক নিয়ম মেনে চলতে হবে। যেমন-

(১) আপনার facebook page follows এর সংখ্যা ১০০০০ (দশ হাজার) এর বেশি থাকতে হবে। (লাইক আর follows একই কথা)

(২) আপনার ফেসবুক পেজে ৩ (তিন) মিনিটের ভিডিও থাকতে হবে। এই ভিডিও সর্বনিম্ন ১ মিনিট করে দেখতে হবে। ২ (দুই) মাসের মধ্যে ১ মিনিট করে ভিডিও ৩০০০০ (এিশ হাজার) মিনিট দেখতে হবে।

(৩) আপনি যে দেশের বসাবাস করেন সেই দেশে ফেসবুক মনিটেশন থাকতে হবে। ( বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান এই সমস্ত দেশে ফেসবুক মনিটেশন দিছে)।

কি ভাবে ব্লগে সহজে গুগল এডসেন্স পাওয়া যায় (Blog Easy Google Adsense)

(৪) কপিরাইট ভিডিও পাবলিশ করা যাবে না। মানে অন্যদের ভিডিও আপলোড করলে মনিটেশন দেবে না। কপিরাইট বাজনা ও ব্যবহার করা যাবে না। শুধুমাএ ছবি দিয়ে ভিডিও তৈরি করলে মনিটেশন দেবে না। মানে সেই ভিডিওতে advertisements দেখাবে না।

এই সকল নিয়ম গুলো মেনে আপনি ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

(৩) Affiliate marketing করে টাকা আয়


বর্তমানে Affiliate marketing এমন হয়ে গেছে যে আপনি কোম্পানির প্রোডাক্ট অথবা পন্য এর প্রচার করে ভালো পরিমানে টাকা আয় করতে পারবেন। আপনি কোম্পানির প্রোডাক্ট গুলো বিভিন্ন সোস্যাল মিডিয়াতে যেমন- facebook, Twitter, instagram, Youtube, Blogger এর সমস্ত ওয়েবসাইট গুলোর মাধ্যমে মানুষের কাছে মারকেটিং অথবা প্রমোশন করতে পারবেন।

যদি আপনার প্রচার থেকে কোনো প্রোডাক্ট কেউ কিনে তাহালে আপনি নিদিষ্ট একটি অংশ টাকা কমিশন (commission) পাবেন। এমন অনেক কোম্পানি রয়েছে যারা ব্লগার, ইউটিউবার এবং যাদের পেজে প্রচুর follows রয়েছে তাদের কাছ থেকে তাদের প্রোডাক্ট গুলো প্রচার করে নিচ্ছে।

আর এতে করে তারা টাকা আয় করতে পারছে। Amazon, Flipkart, Daraz ইত্যাদি এমন অনেক E-commerce সাইট রয়েছে যাদের প্রোডাক্ট প্রচার করে Affiliate marketing এর মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন।

এছাড়া দেশের মধ্যে অনেক E-commerce ওয়েবসাইট রয়েছে। যেমন- Domain & hosting, Website themes, Books, Paid plugins ইত্যাদি।

(৪) YouTube channel এর মাধ্যমে আয়


আপনাদের যাদের ভিডিও বানানোর দক্ষতা রয়েছে তারা একটি YouTube channel তৈরি করে সে খানে ভিডিও আপলোড করে প্রচুর টাকা আয় করতে পারবেন। আমার মতে ব্লগিং এর পরে ইউটিউব থেকে বেশি পরিমানে টাকা আয় করা যায়।

ইউটিউব ভিডিওর জন্য নতুন টপিক কি ভাবে খুজবেন? (কান্টেট আইডিয়া)
 আপনারা যে কোনো ধরনের ভিডিও তৈরি করে সেই ভিডিও YouTube channel Uplode করতে পারবেন। যেমন- Funny, education, story, information ইত্যাদি ভিডিও আপলোড করতে পারবেন। আপনার যে বিষয়ে দক্ষতা রয়েছে আপনি সেই বিষয়ে ভিডিও তৈরি করুন।

প্রথমে ইউটিউব চ্যালেন থেকে টাকা আয় করার জন্য ১২ মাসের মধ্য ১০০০ (এক হাজার) SUBSCRIBE এবং ৪০০০ (চার হাজার) ঘন্টা ওয়াচ টাইম হতে হবে YouTube channel. মানে আপনার চ্যালেনের মোট ভিডিও গুলো সব মিলিয়ে ৪০০০ ঘন্টা দেখতে হবে।

এর পর আপনাকে google Adsense আপনাকে মনিটেশন দিবে আর আপনার ভিডিওতে বিজ্ঞাপন (advertisements) দেখাবে। আর এই বিজ্ঞাপন (advertisements) থেকে আপনি টাকা আয় করতে পারবেন। এমন অনেক মানুষরা রয়েছে যারা তাদের YouTube channel থেকে প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছে। চেষ্টা করলে আপনিও টাকা আয় করতে পারবেন।

(৫) Blogging করে টাকা আয়


আমার ব্যাক্তিগত মতে ইন্টারনেটে টাকা আয় করার যতগুলো মাধ্যম রয়েছে তার মধ্যে সব চেয়ে সহজ মাধ্যম হচ্ছে Blogging করে টাকা আয় করা। আজ থেকে ৪ বছর আগে আমি ব্লগিং করা শুরু করেছি। আর শুরু করার ১ বছর পর থেকে আমার ভালো পরিমানে ইনকাম হচ্ছে।

আর যত দিন যাচ্ছে ততো আমার ইনকাম বৃদ্ধি পাচ্ছে। আমার খুব ভালো পরিমানে ব্লগিং এবং google Adsense থেকে ইনকাম হচ্ছে। আপনারও যে কেউ ব্লগিং করে প্রতি মাসে ভালো পরিমানে টাকা আয় করতে পারবেন।

ব্লগ কি? কি ভাবে ব্লগ তৈরি করবো (Blog Create)

অনেক অনেক মানুষরা ব্লগিংকে তাদের নিজের ক্যারিয়ার হিসাবে নিয়েছে। তারা Full time ব্যবসা হিসাবে নিয়েছে এটাকে। আপনি যদি প্রতিদিন ২ থেকে ৩ ঘন্টা সময় দেন তাহালে প্রতি মাসে ১২ থেকে ১৪ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। আর যতো দিন যাবে ততো ইনকাম বৃদ্ধি পাবে।

বর্তমানে সময়ে ব্লগিং (Blogging) online taka income করার সব চেয়ে জনপ্রিয় এবং লাভজনক মাধ্যম হিসাবে বিবচিত হয়েছে।

সর্বশেষঃ


এমনিতে, ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় (Earning money form Internet) করার অনেক গুলো মাধম রয়েছে। তার মধ্য উল্লোখ যোগ্য হচ্ছে - Feelancing, Data entryr এর মতো ভালো ভালো কাজ। কিন্ত এই সমস্ত থেকে টাকা আয় করা অনেকটা কঠিন কাজ।

উপরে আমি ইন্টারনেট থেকে টাকা আয় করার যে বিষয়ে আলোচনা করলাম সেই বিষয়ে আপনারা বিরস্তিত জ্ঞান নিয়ে কাজ শুরু করতে পারবেন। আমি আশাকরি আপনারা ১০০ % সফলতা পাবেন। সময় এবং ধৈর্য ধরে কাজ করলে আপনারা প্রতিমাসে ভালো পরিমানে টাকা আয় করতে পারবেন। (online taka income) আর কোনো বিষয়ে বুুঝতে সমস্যা হলে কমেন্ট করবেন? ধন্যবাদ।

No comments:

Post a Comment